IMG-LOGO

বৃহস্পতিবার, ২০শে জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৬ই আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জিলহজ ১৪৪৫ হিজরি

× Education Board Education Board Result Rajshahi Education Board Rajshahi University Ruet Alexa Analytics Best UK VPN Online OCR Time Converter VPN Book What Is My Ip Whois
নিউজ স্ক্রল
মান্দায় কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনাগোমস্তাপুরে নদীতে ডুবে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের মৃত্যুমেয়রের সাথে সাক্ষাৎ করেন শহীদ কামারুজ্জামান ডিগ্রি কলেজের শিক্ষকবৃন্দগোমস্তাপুরে বার্ষিক রক্তদাতা মিলনমেলাপোরশার সড়কে ঝরলো আদিবাসী নারীর প্রাণকর্মমুখী শিক্ষা ও সঠিক কর্মপরিকল্পনা সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে পারে : শহীদুজ্জামানরাসিক মেয়রের সাথে জাতীয় শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দের সাক্ষাৎনাতনির বাড়িতে দাওয়াত খাওয়া হলো না আয়েশারপোরশায় নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনাঘাটনগর উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০০৭ ব্যাচের মিলনমেলাশুটিং সেটে ফের রক্তাক্ত প্রিয়াঙ্কা‘মোটরসাইকেলের জন্য সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে’৫ লাখ অভিবাসীকে নাগরিকত্ব দেওয়ার ঘোষণা, বেআইনি বলছে ট্রাম্পশিবিরদেশের সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেতআজ সুপার এইট লড়াইয়ে দ.আফ্রিকার বিপক্ষে নামছে যুক্তরাষ্ট্র
Home >> নগর-গ্রাম >> নিয়ামতপুরে নগদের দূর্বল পদ্ধতি ও ভাতাভোগীর ভুলের শিকার ইউপি সদস্য

নিয়ামতপুরে নগদের দূর্বল পদ্ধতি ও ভাতাভোগীর ভুলের শিকার ইউপি সদস্য

ধূমকেতু প্রতিবেদক, নিয়ামতপুর : হিসাব খুলতে কোন আঙ্গুলের ছাপ, জাতীয় পরিচয়পত্র কিংবা যার নামে হিসাব খোলা হবে তার উপস্থিতি কোনটারই প্রয়োজন নেই। আবার খোলা হিসাবে কোন টাকা আসলে তা গোপনেই নগদ এজেন্ট কিংবা কর্তৃপক্ষ সেই টাকা নিয়ে নেয়। এমনটাই অভিযোগ পাওয়া গেছে নওগাঁ জেলার নিয়ামতপুর উপজেলার শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড সদস্য আসাদুর রহমানের কাছে।

জানা যায়, শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের সৈয়দপুর ডাঙ্গাপাড়ার সৈয়দ আলীর স্ত্রী আবেদা খাতুন (ওরফে রাসেদা)র বয়স্কভাতার টাকা উত্তোলনের জন্য আবেদার মোবাইল না থাকায় সে সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য আসাদুর রহমানের মোবাইল নম্বর (যার নম্বর ০১৭৬৮-৫৪৫০৫০) ব্যবহার করেন যা ইউপি সদস্য জানেন না বলে জানান উক্ত ইউপি সদস্য। গত ৭ মে সেই নম্বরে নগদের মাধ্যমে ৬ মাসের বয়স্কভাতার টাকা ৩ হাজার টাকা ঢুকেছে। আবার সেই টাকা হিসাব মালিকের অজান্তেই ২৩ জুন রাত পোনে ১০টায় নগদ এজেন্ট মা ষ্টোরের ০১৭৩৩-০১৫৭১৭ নম্বরে চলে যায়।

পুনরায় ৩ মাসের ১ হাজার ৫শ টাকা ঢুকলে ইউপি সদস্য জানতে পারে সবকিছু।

ইউপি সদস্য আসাদুর রহমান জানান, আমার অজান্তেই ভাতাভোগী আমার মোবাইল নম্বর ব্যবহার করেছে। কখন আমার নম্বরে টাকা এসেছে কখন নগদ এজেন্ট টাকা তুলে নিয়েছে তা আমি জানি না। আমার অজান্তে কিভাবে নগদ এজেন্টরা টাকা নিয়ে নেয় তা জানা নেই। আমি জানতে পেরে ভাতাভোগীকে তার প্রাপ্য টাকা দিতে গিয়েছিলাম, কিন্তু সে বাড়ীতে না থাকায় দিতে পারি নাই। এ সমস্যা শুধু আমার না আমার ইউপির আরো অনেকের।

ভাতাভোগী আবেদা খাতুন বলেন, মেম্বর আমার আইডি কার্ড নিয়ে অনেকদিন রেখেছিল। সেই তার মোবাইল নম্বর আমার ভাতার টাকার তোলার জন্য দিয়েছে। অনেক ঘুরাঘুরি করে সেই কার্ড নিয়েছি। আমি মোবাইলের মাধ্যমে এখন পর্যন্ত কোন টাকা পায় নাই। অফিসে গিয়ে আমি আমার নতুন নম্বর দিয়ে এসেছি।

শ্রীমন্তপুর ইউপি চেয়ারম্যান আজাহারুল ইসলাম বুলু বলেন, ভাতাভোগী ছাড়া কিভাবে মেম্বর তার মোবাইল নম্বর দিবে। ভাতাভোগীই দিয়েছে অথবা ভাতাভোগীর মোবাইল নম্বর না থাকায় যারা নগদ এ্যাকাউন্ট খুলছিল তারাই সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড সদস্যের মোবাইল নম্বর দিয়ে দিয়েছে। কিন্তু নগদের সিষ্টেম এত দূর্বল কেন যে কেউ টাকা বের করে নিতে পারবে। কোন পিন লাগবে না?

উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আরিফুজ্জামান বলেন, ইউপি সদস্য আমার কাছে এসেছিল আমি পুনরায় আসতে বলেছিলাম। আর নগদ এ্যাকাউন্ট সম্পর্কে আমাদের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট বেশ কিছু ত্রুটি নিয়ে আলোচনা করেছি। শুধু আমাদের এখানে না সারা দেশেই এই সমস্যাগুলো হচ্ছে। আমরা আশা করবো নগদের এই ত্রুটিগুলোর সমাধান করে যাতে সরকারের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য শতভাগ সফল হয় সেদিকে সংশ্লিষ্ট মহল নজর দিবেন।

ধূমকেতু নিউজের ইউটিউব চ্যানেল এ সাবস্ক্রাইব করুন

প্রিয় পাঠকবৃন্দ, স্বভাবতই আপনি নানা ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। যেকোনো ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন এই ঠিকানায়। নিউজ পাঠানোর ই-মেইল : dhumkatunews20@gmail.com. অথবা ইনবক্স করুন আমাদের @dhumkatunews20 ফেসবুক পেজে । ঘটনার স্থান, দিন, সময় উল্লেখ করার জন্য অনুরোধ করা হলো। আপনার নাম, ফোন নম্বর অবশ্যই আমাদের শেয়ার করুন। আপনার পাঠানো খবর বিবেচিত হলে তা অবশ্যই প্রকাশ করা হবে ধূমকেতু নিউজ ডটকম অনলাইন পোর্টালে। সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ নিয়ে আমরা আছি আপনাদের পাশে। আমাদের ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করার জন্য অনুরোধ করা হলো Dhumkatu news

June 2024
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930