IMG-LOGO

বৃহস্পতিবার, ২৩শে মে ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৯ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জিলকদ ১৪৪৫ হিজরি

× Education Board Education Board Result Rajshahi Education Board Rajshahi University Ruet Alexa Analytics Best UK VPN Online OCR Time Converter VPN Book What Is My Ip Whois
নিউজ স্ক্রল
আজ ১৪ দলের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকআজ চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন ইরানি প্রেসিডেন্ট রাইসি৫ কোটি টাকার চুক্তিতে এমপি আনার কলকাতায় খুনব্রাজিলে মোবাইল কেড়ে নেওয়ায় বাবা-মা-বোনকে হত্যাসিরিজ বাঁচানোর লক্ষ্যে আজ যুক্তরাষ্ট্রের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশবঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জুলিও কুরি শান্তি পদক প্রাপ্তির ৫১ বছরবিএনপির ১৫ দিনের কর্মসূচি‘প্রেসিডেন্ট রাইসির মৃত্যু বিরাট ক্ষতি’নওগাঁর তিন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী যারা‘এমপি আনোয়ারুল হত্যাকাণ্ড দুই দেশের কোনো বিষয় নয়’মহাদেবপুরে নিখোঁজের তিনদিন পর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারএমপি আনারের মরদেহ কলকাতায় উদ্ধারপোরশায় নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানকে গণসংবর্ধনা‘এমপি আনার বাংলাদেশের কিছু অপরাধীর হাতে খুন হয়েছেন’রাজশাহীতে স্পার্ক গিয়ার শোরুমে ২য় শাখার উদ্বোধন
Home >> নগর-গ্রাম >> টপ নিউজ >> আকচা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

আকচা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

ধূমকেতু নিউজ ডেস্ক : ঠাকুরগাঁও সদরের আকচা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুব্রত কুমার বর্মণের বিরুদ্ধে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। চাকরি ও সরকারি ঘর দেওয়ার নামে তিনি টাকা নিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় লোকজন।

সুব্রত কুমার আসন্ন আকচা ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে আবারো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা দিনমজুর রমজান আলী বলেন, ‘আমি আকচা এই ইউনিয়নের একজন ভূমিহীন বাসিন্দা। যখন জানতে পারলাম আমাদের থাকার ঘর দেওয়া হবে, তখন আমি চেয়ারম্যান সুব্রত কুমারের সঙ্গে যোগাযোগ করি। কিন্তু নিরাশ হই। তিনি অনেক ধনীদের ঘর দিয়েছেন কিন্তু আমাকে দেননি। পরে চেয়ারম্যানের লোক সুবেদ আমার কাছে টাকা চাই। ৫০ হাজার টাকা দিলে নাকি ঘর পাওয়া যাবে। আমার দুইটা ছাগল ছিল। আমি সেগুলো বিক্রি করে তাকে ২০ হাজার টাকা দেই বাকিটা ঘরে উঠার পর। আমাকে দেখে আরও চারজন একই পরিমাণ টাকা দেয়। কিন্তু তারা আমাদের আর ঘর দেননি। টাকাও ফেরত দিচ্ছেনা। চেয়ারম্যানের কাছে গিয়ে টাকা ফেরত চাইলেই তিনি বলেন কয়দিন পরে আসো।’

ইউনিয়নের সর্দার পারার বাসিন্দা ফেন্সি বেগম বলেন, ‘আমাকে সরকারি ঘর দেওয়ার কথা বলে চেয়ারম্যান ২৪ হাজার টাকা নিয়েছে। কিন্তু ঘর দেননি। বলতেছেন পরের বাজেটে দেবে। কিন্তু মানুষ বলতেছে নতুন করে ঘর নাকি আর বানানো হবেনা। তাই টাকা ফেরত চাইছি। কিন্তু তিনি আমার টাকা ফেরত দিচ্ছেন না।’

একই এলাকার সারোয়ার হোসেন বলেন, ‘সুব্রত কুমার সরকারি ঘর দেওয়ার নাম করে প্রায় ৩০ থেকে ৫০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। কিন্তু এতো পরিমাণে সরকারি ঘর না থাকায় বিপাকে পরেছেন তিনি। এখন ঘর দিতে না পারায় সবাই তার ওপর ক্ষেপে গেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘শুধু ঘর নয় ইউনিয়নের অনেক যুবককে চাকরি দেওয়ার কথা বলে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন সুব্রত কুমার। আমার এলাকার ইসরাফিল নামের এক ছেলের বাবা জমি বিক্রি করে সাত লাখ টাকা দিয়েছেন। কিন্তু ওই যুবক এখনো চাকরি পায়নি। এখন টাকাও ফেরত দিচ্ছেন না চেয়ারম্যান।’

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চেয়ারম্যান সুব্রত কুমারের সঙ্গে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি দেখা করতে রাজি হননি। পরে মুঠোফোনে সব অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, ‘আমি এদের কাউকে চিনিনা।’

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ইউএনও আবু তাহের মোহাম্মদ সামসুজ্জামান বলেন, ‘টাকার বিনিময়ে সরকারি ঘর দেওয়ায় কোনো সুযোগ নেই। বিষয়টি প্রমাণিত হলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়াও টাকা আত্মসাতের বিষয়ে কেউ অভিযোগ করলে তা খতিয়ে দেখা হবে।’

ধূমকেতু নিউজের ইউটিউব চ্যানেল এ সাবস্ক্রাইব করুন

প্রিয় পাঠকবৃন্দ, স্বভাবতই আপনি নানা ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। যেকোনো ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন এই ঠিকানায়। নিউজ পাঠানোর ই-মেইল : dhumkatunews20@gmail.com. অথবা ইনবক্স করুন আমাদের @dhumkatunews20 ফেসবুক পেজে । ঘটনার স্থান, দিন, সময় উল্লেখ করার জন্য অনুরোধ করা হলো। আপনার নাম, ফোন নম্বর অবশ্যই আমাদের শেয়ার করুন। আপনার পাঠানো খবর বিবেচিত হলে তা অবশ্যই প্রকাশ করা হবে ধূমকেতু নিউজ ডটকম অনলাইন পোর্টালে। সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ নিয়ে আমরা আছি আপনাদের পাশে। আমাদের ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করার জন্য অনুরোধ করা হলো Dhumkatu news