IMG-LOGO

শুক্রবার, ১লা মার্চ ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
১৭ই ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৯শে শাবান ১৪৪৫ হিজরি

× Education Board Education Board Result Rajshahi Education Board Rajshahi University Ruet Alexa Analytics Best UK VPN Online OCR Time Converter VPN Book What Is My Ip Whois
নিউজ স্ক্রল
গোমস্তাপুরে পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য রক্ষায় সাইকেল র‌্যালীমেয়রের সাথে তায়কোয়ানদো এসোসিয়েশনের পদক জয়ীদের সাক্ষাৎফুলবাড়ীতে দ্রুত ব্রীজ মেরামতের দাবি এলাকাবাসীররাজশাহী এডভোকেট’স বার এসোসিয়েশন নির্বাচনে ভোট দিলেন মেয়র লিটনবড়াইগ্রামে রোজার পবিত্রতা রক্ষার্থে জনসচেতনা মূলক প্রচারণামান্দায় বালু দস্যুদের থাবায় নদীগর্ভে ফসলি জমিতানোরে হত্যার ঘটনায় প্রধান আসামিসহ গ্রেপ্তার ৩সয়াবিন তেলের নতুন দাম কার্যকর পহেলা মার্চবলিউড যেখানে শেষ আশ্রয়‘মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ‘ছিটেফোঁটাও নেই’’রাজশাহীতে ছেলেকে মারধর ও বাড়িতে হামলা-ভাঙচুরের বিচার চাইলেন বাবা-মাবাজে অঙ্গভঙ্গি করায় এক ম্যাচ নিষিদ্ধ ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো‘দেশ ধ্বংসের মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়নে তৎপর বিএনপি’সব সঞ্চয় ফিলিস্তিনি শিশুদের জন্য দান করে গেছেন গায়ে আগুন দেওয়া সেই মার্কিন সেনাজনগণের ক্ষমতা জনগণের হাতে ফিরিয়ে দিয়েছে আওয়ামী লীগ
Home >> রাজশাহী >> রাজশাহীতে পুলিশের সেন্ট্রাল সিসি ক্যামেরা ইউনিটের প্রথম বর্ষপূর্তি

রাজশাহীতে পুলিশের সেন্ট্রাল সিসি ক্যামেরা ইউনিটের প্রথম বর্ষপূর্তি

ধূমকেতু প্রতিবেদক : গত ২৭ ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিঃ বাংলাদেশ পুলিশের অভিভাবক মাননীয় ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের এই ইউনিট উদ্বোধন করেন।

রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের সম্মানিত পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক মহোদয়ের সার্বিক দিকনির্দেশনা ও ইনোভেটিভ চিন্তা প্রসূত এই ইউনিট প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। সর্বমোট ৫০০ সিসি ক্যামেরা প্রতিষ্ঠা করে পুরো মেট্রোপলিটন এলাকার সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্ল্যান করা হয়েছে।

এর মধ্যে প্রায় ৩৫০ টির অধিক ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে এবং বাকি ক্যামেরা স্থাপনের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। মেট্রোপলিটন এলাকায় রাস্তার সম্প্রসারণের কাজ চলমান থাকায় সকল ক্যামেরা স্থাপনের কাজ করতে কিছুটা বিলম্ব হলেও অধিকাংশ গুরুত্বপূর্ণ স্থান গুলোতে ক্যামেরা স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে। আধুনিক প্রযুক্তির লেটেস্ট ভার্সনের আইপি ক্যামেরা ও কমিউনিকেশন টেকনোলজির সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে।

প্রত্যেকটি ক্যামেরা হাই রেজুলেশন ভিডিও ধারণ করতে পারে এবং উচ্চগতি সম্পন্ন ডাটা ট্রান্সফারের জন্য ১২ কোরের অপটিক্যাল ফাইবার ব্যবহার করা হয়েছে। এক কথায় রাজশাহী মহানগর বাসীর নিরাপত্তা, অপরাধ ও অপরাধী শনাক্তকরণে সর্বাধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ও কমিউনিকেশন টেকনোলজি বা সিস্টেমের ব্যবহার করা হচ্ছে।

অপারেশন কন্ট্রোল এন্ড মনিটরিং সেন্টার এর সর্বমোট জনবল হচ্ছে ৯ জন। একজন সহকারী পুলিশ কমিশনারের নেতৃত্বে অপারেশন ও টেকনিক্যাল কার্যক্রমের জন্যে ১ জন ইন্সপেক্টর ১ জন সাব-ইন্সপেক্টর ও ৬ জন কনস্টেবল এবং বেতার কমিউনিকেশনের জন্যে ৩ জন কনস্টেবল সার্বক্ষণিক ও পালাক্রমে দায়িত্বরত রয়েছে।

আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সর্বাধুনিক এই ইউনিটটি প্রতিষ্ঠার পর রাজশাহী মেট্রোপলিটন এলাকায় সংঘটিত সকল ক্লু-লেস অপরাধ ও অপরাধী শনাক্তকরণে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে। এই ইউনিটটি প্রতিষ্ঠার এক বছর পূর্তিতে একটি পরিসংখ্যান ভিত্তিক সাফল্যের তথ্য দেয়া হলোঃ

প্রায় ১০০ এর অধিক চুরির ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও চোর শনাক্ত করণ হয়েছে। চুরির ঘটনার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে স্বর্ণচুরি, বিভিন্ন দোকান চুরি, ঔষধ চুরি, মোবাইল চুরি, অটো রিক্সা চুরি, মটরসাইকেল চুরি, গরু চুরিসহ অন্যান্য চুরির রহস্য উদঘাটন।

প্রায় ২৫ টির অধিক ছিনতাই ঘটনার রহস্য উদঘাটনসহ অপরাধী শনাক্ত করন।

প্রায় ২০ টির অধিক ইভটিজিংয়ের ঘটনায় অপরাধী সনাক্ত করনসহ মহানগরীর কিশোর অপরাধ দমনে সার্বক্ষণিক মনিটরিং।

প্রায় ১৫ টির অধিক হারানো ঘটনার রহস্য উদঘাটন।

গত এক বছরে রাজশাহী মহানগর এলাকার ২০ টির অধিক মারামারির ঘটনার রহস্য উদঘাটন সহ আসামী সনাক্তকরণ।

ছেলে/মেয়ে হারানো বা হারিয়ে যাওয়া নাটক করা সহ বিভিন্ন ব্যক্তি হারানোর প্রায় ১৫ টির অধিক ঘটনার রহস্য উদঘাটন।

প্রায় ১০ টির মত অজ্ঞান পার্টির ঘটনার আসামি শনাক্ত করণ।

৫০টির অধিক সড়ক দুর্ঘটনার প্রকৃত কারণ সনাক্ত সহ দ্রুত সংবাদ প্রেরণ।

১০ টির অধিক ক্লু-লেস মার্ডার মামলার রহস্য উদঘাটন সহ আসামি শনাক্তকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন। এখন পর্যন্ত এই ইউনিটটি সর্বমোট ২৭০ টির ও অধিক ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও আসামি শনাক্তকরনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কাজ করেছে।

এছাড়াও ট্রাফিক কন্ট্রোল, বিভিন্ন রাজনৈতিক প্রোগ্রামের মিছিল/র‍্যালী/ সমাবেশ, বিশেষ দিবসের পর্যবেক্ষণের জন্যে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হয়। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ রাজশাহী মহানগরের সকল গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা, মোড় ও স্থাপনার নিরাপত্তায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। এই ইউনিটটির সার্বক্ষণিক মনিটরিং এর কারণে বিগত বছরের তুলনায় মহানগরীতে প্রায় ৩০/৪০ শতাংশ অপরাধ কমেছে।

একটি আধুনিক নগরীর পূর্বশর্ত হচ্ছে সকল কিছু ডিজিটালাইজড করা। রাজশাহী মহানগরীকে ডিজিটাল মহানগরীতে রুপান্তরিত করার প্রথম ধাপ ই হচ্ছে পুরো মহানগরীকে সিসি ক্যামেরা দিয়ে নিরাপত্তার চাদরে আবৃত করে দেয়া যা রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ অত্যন্ত দক্ষতা ও সফলতার সাথে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের সম্মানিত পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক মহোদয়ের দূরদৃষ্টি সম্পন্ন ভাবনায় রাজশাহী মহানগর ধীরে ধীরে নিরাপদ ও অপরাধমুক্ত নগরীর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। সর্বোপরি অপারেশন কন্ট্রোল এন্ড মনিটরিং সেন্টার (সেন্ট্রাল সিসি ক্যামেরা ইউনিট) রাজশাহী মহানগরকে শান্তির মহানগরে প্রতিষ্ঠায় সর্বদা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ রয়েছে।

ধূমকেতু নিউজের ইউটিউব চ্যানেল এ সাবস্ক্রাইব করুন

প্রিয় পাঠকবৃন্দ, স্বভাবতই আপনি নানা ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। যেকোনো ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন এই ঠিকানায়। নিউজ পাঠানোর ই-মেইল : dhumkatunews20@gmail.com. অথবা ইনবক্স করুন আমাদের @dhumkatunews20 ফেসবুক পেজে । ঘটনার স্থান, দিন, সময় উল্লেখ করার জন্য অনুরোধ করা হলো। আপনার নাম, ফোন নম্বর অবশ্যই আমাদের শেয়ার করুন। আপনার পাঠানো খবর বিবেচিত হলে তা অবশ্যই প্রকাশ করা হবে ধূমকেতু নিউজ ডটকম অনলাইন পোর্টালে। সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ নিয়ে আমরা আছি আপনাদের পাশে। আমাদের ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করার জন্য অনুরোধ করা হলো Dhumkatu news